সাভার প্রতিনিধি: গুলি করে ছিনতাই: এবার গ্রেফতার মূলহোতাসাভারের আমিনবাজার এলাকায় ইতালি প্রবাসীকে প্রকাশ্যে গুলি করে ছিনতাইয়ের ঘটনায় এবার মূলহোতাকে অস্ত্রসহ গ্রেফতার করা হয়েছে। এসময় একটি বিদেশী বিদেশী পিস্তল, একটি ম্যাগজিন, এক রাউন্ড গুলি, তিনটি মোবাইল ফোন ও একটিটি ইয়ামাহা এফজেড-এস মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়। এ নিয়ে সাভার মডেল থানায় অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে দায়ের করা ডাকাতি মামলায় চারজনকে গ্রেফতার করলো বাহিনীটি। সোমবার বেলা সাড়ে ১২টায় প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করে র‌্যাব-৪ এর মিডিয়া কো-অর্ডিনেটর সহকারী পুলিশ সুপার জিয়াউর রহমান চৌধুরী।এর আগে রোববার রাত ১টার দিকে রাজধানীর পল্লবী থানাধীন বাউনিয়াবাধ এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।চাঞ্চল্যকর এ মামলার মূলহোতা গ্রেফতার গোলাম মোস্তফা শাহীন (৫০) ওরফে মোশারফ বগুড়া জেলার বাসিন্দা।র‌্যাব আরো জানায়, গ্রেফতার আসামীর বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় ডাকাতি, অবৈধ অস্ত্র, দস্যূতা ও হত্যাসহ নিয়মিত মামলা রয়েছে।

সে ‘কোম্পানী’নামে একটি আন্তঃজেলা ডাকাত দল গঠন করে এরই মূল হোতা হিসেবে ঢাকাসহ আশ-পাশের জেলায় ডাকাতি করে আসছিলো। পূর্বের অভিজ্ঞতা থেকেই গ্রেফতার এড়াতে দলের প্রত্যেক সদস্যকে সে প্রশিক্ষণ দিত। টার্গেট বাছাই করা থেকে শুরু করে অস্ত্রের যোগান সবই দিতো সে নিজেই আর বাকীদের কাজ ছিলো তার নির্দেশ অনুযায়ী মানুষকে আক্রমণ করা। এজন্য সে নিজের মটর সাইকেল ও প্রাইভেটকার ডাকাতির সময় ব্যবহার করে। জিজ্ঞাসাবাদে আরো জানা যায়, দুমাস আগে জামিনে বের হয়ে পুনরায় ডাকাত দল গঠন করে ডাকাতি শুরু করে। পরে গত ২৮ অক্টোবর আমিনবাজার ভাকুর্তায় এলাকায় ইতালি প্রবাসীর ৫ লাখ ৭০ হাজার টাকার ডাকাতির মূল পরিকল্পণাকারী। র‌্যাব-৪ এর সহকারী পুলিশ সুপার সুপার জিয়াউর রহমান চৌধুরী জানান, এই ডাকাতি মামলায় এ নিয়ে চার আসামিকে গ্রেফতার করা হলো। ডাকাত দলের মূল হোতা গোলাম মোস্তফা। তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় অস্ত্র, ডাকাতি ও হত্যা মামলা রয়েছে। গ্রেফতার আসামির বিরুদ্ধে আইনগত প্রক্রিয়া শেষে তাকে সাভার মডেল থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হবে। এ ডাকাত চক্রের সাথে জড়িত অন্যান্য পলাতক আসামীদের গ্রেফতারে র‌্যাবের সাড়াশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলেও জানান তিনি।প্রসঙ্গত, গত ২৮ অক্টোবর কেরানীগঞ্জের বাসিন্দা প্রবাসী আমান উল্লাহ তার স্ত্রীকে নিয়ে সাভারের আমিনবাজারের একটি ব্যাংক থেকে টাকা উত্তোলনের জন্য আসেন। পরে বাড়ি নির্মাণের জন্য ৫ লাখ ৭০ হাজার টাকা উত্তোলন করে স্ত্রীর ভ্যানিটি ব্যাগে রাখেন। এরপর একটি ট্যাক্সিক্যাব ভাড়া করে কেরানীগঞ্জের উদ্দেশ্যে রওনা হন। এসময় ভাকুর্তা লোহার ব্রিজ এলাকায় পৌছলে তাদের অনুসরণ করে আসা তিনটি মোটরসাইকেল ও প্রাইভেটকার তাদের গতিরোধ করে। ডাকাতদল প্রকাশ্য দিবালোকে এলোপাথাড়ি গুলি করে এতে প্রবাসী আমান উল্লাহ বাম পায়ে গুলিবিদ্ধ হন। পরে ব্যাগে থাকা ৫ লাখ ৭০ হাজার টাকা ছিনিয়ে যায়। গুলিবিদ্ধ অবস্থায় ভুক্তভোগী আমানুল্লাহ’কে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এঘটনায় ওই দিন রাতে সাভার মডেল থানায় ভুক্তভোগীর স্ত্রী বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামী করে একটি মামলা রুজু করেন।