নিতিশ সানা, কয়রাঃ -প্রকৃতিতে এখন চলছে হেমন্তকাল। কয়রায় হঠাৎই আবহাওয়ায় ব্যাপক পরিবর্তন।একদিন আগেও যেখানে বেশ গরমের অনুভূতি ছিল, সেই আবহাওয়ায় এখন শুরু হয়েছে শীতের আমেজ। দিনের রোদের প্রচ-তা কেটে গেছে। আগের মতো আর গরমের ভাব নেই। ভোরের দিকে হালকা কুয়াশায় ঢেকে যাচ্ছে চারপাশ।দিনে রোদ থাকলেও সন্ধ্যার পর থেকে অনূভূত হচ্ছে শীত। রাতে বইছে হিমেল হাওয়া। যার প্রভাব থাকছে ভোর পর্যন্ত।আবহাওয়া অফিসের হিসেবে দেখা গেছে দেশের কোথাও কোথাও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা  মতই কয়রায়ও ১৪ ডিগ্রী সেলসিয়াসে নেমে এসেছে। তারা জানায়, আগামী কয়দিনেই রাতের তাপমাত্রা আরও কমবে।সন্ধ্যার পর থেকেই তাপমাত্রা কমে আসতে শুরু করে। শিক্ষক হাফিজুর রহমান বলেন, বেশ কয়েকদিন রাতে বেশ ঠান্ডা পড়ছে। গায়ে লেপ বা কাতা দেওয়া লাগছে। 
কয়রায় মধ্যরাত থেকে কুয়াশা পড়তে শুরু করছে। শীতের সবজি চাষ নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন কৃষকরা। আগাম শীতের কারণে লেপ-তোষকের দোকানেও বেড়েছে ব্যস্ততা। শহরে শীতের কাপড়ের দোকান গুলোতেও বিক্রি বেড়েছে বলছেন ব্যবসায়ীরা। কয়রা সদরের লেপ- তোষকের ব্যবসায়ী দিদারুল জানান,লেপ- তোষকের অর্ডারের প্রচুর চাপ। কাজের এতো চাপ নাওয়া-খাওয়ার সময় পাচ্ছি না। 
শীতের আমেজে আবহাওয়ার পরিবর্তনের ফলে প্রায় প্রতিটা বাড়িতে দেখা দিয়েছে সর্দি-কাশি। এদিকে শীতের সময় করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধিসহ অন্যান্য ভাইরাসজনিত রোগ এড়াতে সবাইকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকরা।
আবহাওয়াবিদ কাওছার হামিদ জানান,বাতাসে শীতের আবহ শুরু হলেও এখনি জমিয়ে শীত আসছে না। এবারও মধ্য ডিসেম্বর থেকে জেঁকে শীত নামতে পারে। শীতঋতুর বৈশিষ্ট্য হচ্ছে নিম্ন তাপমাত্রা,আগামী তিনদিনে রাতের তাপমাত্রা আরও কমতে পারে।