হালিম সৈকত , কুমিল্লা :  কুমিল্লায় রাজনৈতিক বিরোধ ও এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে প্রকাশ্য দিবালোকে জিল্লুর রহমান  নামে এক যুবলীগ কর্মীকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে নিহতের ছোট ভাই ইমরান হোসাইন চৌধুরী বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। মামলায় কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের ৩ কাউন্সিলর ও মহানগর যুবলীগের আহবায়কসহ ২৪ জনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে। দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সদর দক্ষিণ মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) কমল কৃষ্ণ ধর। 

মামলায় অভিযোগ করা হয়, ‘জিল্লুর রহমান ২০১৭ সালের কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন (কুসিক) নির্বাচনে কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দিতা করে পরাজিত হওয়ার পর থেকে কুসিকের ৩ কাউন্সিলরসহ অন্যান্য আসামীদের সাথে তার বিরোধ চলে আসছিল। সেই বিরোধের জের ধরে তাকে খুন করা হয়েছে।’ মামলায় কুসিকের ২৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবুল হাসান, ২৬ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুস সাত্তার এবং ২৫ নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর খলিলুর রহমান প্রকাশ খলিল, মহনগর যুবলীগের আহবায়ক আবদুল্লাহ আল মাহমুদ ও মহানগর সেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক জহিরুল ইসলাম রিন্টু, ২৭নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি ইমরানসহ ২৪ জনকে এজাহার নামীয় এবং অজ্ঞাতনামা আরও ১০/১৫ জনকে আসামি করা হয়েছে। 

সদর দক্ষিণ মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) কমল কৃষ্ণ ধর জানান, বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত এ মামলায় এজাহার নামীয় ৯ সং আসামী আব্দুল কাদেরকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অপর আসামিদের গ্রেফতারে পুলিশের পাশাপাশি র্যাব ও ডিবির অভিযান চলছে।  
উল্লেখ্য যে, বুধবার সকাল ৭ টার দিকে শহর থেকে আসা স্ত্রী জাহানারাকে এগিয়ে আনতে জিল্লুর রহমান  পুরাতন চৌয়ারা বাজারে অপেক্ষা করছিলেন। এসময় কয়েকটি মোটরসাইকেলে করে হেলমেট পরিহিত ১০/১৫ জন দুর্বৃত্ত তাকে কুপিয়ে গুরতর আহত করে পালিয়ে যায়। পরে তার স্ত্রী সিএনজি থেকে নেমে আহত জিল্লুরকে উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসাধিন অবস্থায় সে মারা যায়