গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের নবগঠিত কমিটির নেতৃবৃন্দ

কাজী ওহিদ, গোপালগঞ্জ থেকেঃ- ১৬ নভেম্বর সোমবার বিকালে টুঙ্গিপাড়ায় পৌঁছে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের নবগঠিত কমিটির চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ মাইনুল হোসেন খান নিখিল সংগঠনের সকল নেতৃবৃন্দদেরকে সাথে নিয়ে বঙ্গবন্ধু সমাধি সৌধের বেদিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। পরে তারা পবিত্র ফাতেহা ও দুরুদ পাঠ শেষে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারে শাহাদাত বরণকারী সকল শহীদের রুহের মাগফিরাত কামনা, বঙ্গবন্ধু’র সুযোগ্য কন্যা, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা’র সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা সহ করোনা থেকে দ্রুত মুক্তি চেয়ে দেশের কল্যাণ কামনায় বিশেষ দোয়া ও মোনাজাতে অংশ নেন। এ সময় স্বাস্থ্যবিধি মেনে সংগঠনের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও এফবিসিসিআই এর সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম ও সাজ্জাদ হায়দার চৌধুরী লিটন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নাঈম, প্রচার সম্পাদক জয়দেব নন্দী, আইন সম্পাদক ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন, দপ্তর সম্পাদক মুস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, সহ—দপ্তর সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন শাহজাদা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া আরোও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ফরিদপুর- ৪ আসনের সংসদ সদস্য মোঃ মুজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন, গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মাহবুব আলী খান, গোপালগঞ্জ সদর আওয়ামীলীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র কাজী লিয়াকত আলী, সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম মিটু, টুঙ্গিপাড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শেখ আবুল বশার খায়ের, সাধারণ সম্পাদক মোঃ বাবুল শেখ, উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ সোলায়মান বিশ্বাস, পৌর মেয়র শেখ আহমেদ হোসেন মির্জা, পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি শেখ সাইফুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক মোঃ ফোরকান বিশ্বাস সহ আওয়ামীলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগের অন্যান্য নেতাকর্মীরা। শ্রদ্ধা নিবেদনের পর সংগঠনের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ সমাধিসৌধ কমপ্লেক্স প্রাঙ্গণে গণমাধ্যমকে জানান, অতীতের সব গ্লানি ভুলে নতুন ২০১ সদস্য বিশিষ্ট আওয়ামী যুবলীগের নবগঠিত এই কমিটি তার হারানো ঐতিহ্যকে খুঁজে নিয়ে বঙ্গবন্ধু’র স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে কার্যকরী ভূমিকা রাখবে বলে আমি দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করছি। সেই সাথে সংগঠনের কেউ সংগঠন বিরোধী কোন কর্মকাণ্ডে জড়ালে, তাকে বিন্দুমাত্রও ছাড় দেওয়া হবে না বলে তিনি কঠোর হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।