সাভার প্রতিনিধি: আশুলিয়ায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে হাশেমুল ইসলাম টুটুল (১৯) নামের এক যুবককে মারধরের ঘটনায় ৪ মাস পর কিশোর গ্যাংয়ের ৪ সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সোমবার (২৩ নভেম্বর) দুপুরে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক হারুন-অর-রশিদ। এরআগে (২২ নভেম্বর) রবিবার দিবাগত রাতে আশুলিয়ার ভাদাইল এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃত কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা হলো- আশুলিয়ার ভাদাইল মধ্যপাড়া এলাকার জসিম উদ্দিনের ছেলে রকি ওরফে ছোট রকি (১৮), একই এলাকার রনির ছেলে রাকিবুল ইসলাম (১৮), পাবনা জেলার সাথিয়া থানার জাহাঙ্গীরের ছেলে সোহান (১৮) ও জামালপুর জেলার সদর থানার রফিকের ছেলে নাবিব (১৮)। তারা প্রত্যেকেই কিশোর গ্যাংয়ের সদস্য বলে জানা যায়। হামলার শিকার হাশেমুল ইসলাম টুটুল (১৯) ভাদাইল পূর্বপাড়া এলাকার বাসিন্দা। তিনি একই এলাকায় সিদ্দিক মাতব্বরের ইলেকট্রনিক্স এর শো-রুমে কাজ করতেন।

পুলিশ জানায়, গত ৮ জুন সন্ধ্যায় শো-রুমের কিস্তির টাকা আদায় করতে জামগড়ার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয় টুটুল। পরে জামগড়া এলাকার রূপায়ন মাঠ সংলগ্ন শাহিনের বাড়ির সামনে পৌছলে পূর্ব শত্রুতার জেরে গ্রেপ্তারকৃতরাসহ অজ্ঞাত আরও ১০/১২ জন তাকে চারদিক থেকে ঘিরে ফেলে। এসময় তাকে হত্যার উদ্দেশ্য দেশীয় অস্ত্র, হকিস্টিক, চাপাতি, চাইনিজ কুড়াল ও লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। অজ্ঞান হয়ে পড়ায় মৃত ভেবে চলে যায়। পরে পথচারীরা তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে ভর্তি করে। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রেফার্ড করা হয়। গত ১০ জুন তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হলে তারা গা ঢাকা দেয়। মামলা দায়েরর প্রায় ৪ মাস পর আসামীদের গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

এ ব্যাপারে আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক হারুন-অর-রশিদ জানান, গ্রেপ্তারকৃত আসামীরা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। তাদেরকে আজ দুপুরে আদালতে পাঠানো হয়েছে। বাকিদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।