জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দুর্বৃত্তের হামলায় ডাক্তার ও ওয়ার্ডবয় মিশির কুমার ঘোষ মারাক্তক ভাবে জখম হয়েছে । আজ মঙ্গোলবার (২৪ নভেম্বর) রাত ১২.৩০ মিনিটে  হাসাদাহ থেকে রোগীর নিয়ে তার স্বজনরা জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে চিকিৎসার  জন্য, তারপর রোগীর স্বজনরা কর্মরত মেডিকেল অফিসার ডা: একে,এম নাইদ হাসানকে দেখান, ডা: একে,এম,নাহিদ হাসান  ওয়ার্ডবয় কে আদের্শ করে রোগীকে অক্সিজেন দিতে ওয়ার্ডবয় শিশির কুমার ঘোষ তক্ষানিক রুগীকে অক্সিজেন দেন,এসময় রুগীর স্বজনরা অভিযোগ করে বরেন  অক্সিজেন চলছে না এক পর্যায়ে রুগীর স্বজনরা ওয়ার্ডবয় শিশির কুমার ঘোষের উপর হামলা করে সাথে সাথে কর্মরতো মেডিকেল অফিসার একে,এম নাইদ হাসান পরিস্থিতি সামাল দিতে আসলে তার উপরেও থামলা চালায় দুর্বৃত্তেরা। এসময়  জীবননগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি সাইফুল ইসলামকে বিষায়টি জানালে তিনি দুরুত্ব পদক্ষেপ গ্রহণ করে এস,আই রকি মন্ডল ও মিজানুর রহমানকে ঘটনা স্থালে পাঠালে,তারা ঘটনা স্থাল থেকে দুই জনকে আটক করতে সক্ষম হয়,দুই জন কে থানায় নেয়ার পর রোগীর চিকিৎসার ক্ষেত্রে এক জনকে ছেড়ে দেওয়া হয়। আটক কৃত আসামি হলেন, হাসাদাহ পেনেরো সাতিপাড়ার নজরুল ইসলামের ছেলে মোঃ তুষার ইমরান (২৫)। জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ জুলিয়েট পারউইন  স্নিগ্ধার কাছে এই ব্যপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন আমরা সিভিল সাজর্নকে বিষায়টা জানিয়েছি এবং আমরা আগামীকাল জরুরী ভিত্তিতে মিটিং করে এই ব্যপারে ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। তবে ওয়ার্ডবয় শিশির ঘোষ মারাক্তক ভাবে জখম হয়ে নাক মুখ দিয়ে বমি বের হচ্ছে,অবস্থা অবণতি হওয়ার কারণে আরএমও চুয়াডাঙ্গায় রেফাড করে। তিনি আরো বলেন  আমাদের প্রায় প্রায় এমন ঘটনার মুখোমুখি হতে হয়,এই ব্যপারে আমরা আমাদের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানিয়েছি। তাৎক্ষণিকভাবে স্থানীয় জনসাধারণ সেখানে উপস্থিত ছিলেন তারা বলেন হাসপাতালে কোনো নিরাপত্তা বেষ্টনী নেই যার কারণে এ ধরনের ঘটনা প্রায়ই ঘটে থাকে। যদিও পুলিশ প্রশাসনকে ফোন দিলে সাথে সাথে এসে তারা একজনকে ধরে নিয়ে যায়।আর  আরএমও সেতু এবং মেডিকেল অফিসার নাহিদ বলেন  আর যাতে এই ধরনের ঘটনা না ঘটে আমরা প্রশাসনের দৃষ্টি কামনা করছি।