মনোয়ার বাবু (ঘোড়াঘাট)দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ৭ মার্চ ২০২০ ইং সারা বিশ্বের ন্যায় করোনার মরন ছোবল বাংলাদেশেও হানা দেয়। কাপিয়ে তোলে দেশের আনাচে কানাচে। ভয়ে সারা দেশের মানুষ আতঙ্কিত।ছোয়াসে ভাইরাস হওয়ার কারণে সরকার কর্তৃক মানুষের সুবিধার্থে সকল প্রকার সর্তকতা জারি করে।কিন্ত নিজের জীবনের মায়া ত্যাগ করে জনগনের সুবিধার্থে দিন রাত দাপিয়ে বেড়িয়ে জনগনের দোড়গড়ায় সকল সেবা পৌছে দেওয়া জন্য নিরালস ভাবে শ্রম দিয়েছেন দিনাজপুর -৬ আসনের এমপি শিবলী সাদিক।

নিজ এলাকার এক প্রান্ত থেকে আর এক প্রান্তে রাতে কিংবা দিনে নিজের ঘুম ত্যাগ করে চসে বেড়িয়ে মানুষের খোজ খবর নিয়ে সর্বাত্নক সহযোগীতা করেছেন তিনি।করোনা কালিন সময়ে সাধারণ মানুষের খাবারের ব্যবস্তা করা থেকে শুরু করে ইমাম মুয়াজ্জিন কে নগত অর্থ এবং বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের নতুন ঘর তৈরী করা সহ উপজেলা প্রসাশন কে নগত অর্থ দিয়ে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দেন।

কিন্তু জনগনের এই নেতা হঠাৎ নিজেই অসুস্থ হয়ে যান।তার মেরুদণ্ডে ব্যাথা অনুভোব করেন।অবাক করা বিষয় ব্যাথায় যখন তিনি জরাজীর্ণ, নিজের শরীরের সাথে যুদ্ধ ঘোষনা করে ২৭ সেপ্টেম্বর চলে আসেন ঘোড়াঘাট পৌরসভার বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের সচক্ষে দেখার জন্য এবং সেই সময় পানি নিষ্কাশন থেকে শুরু করে ক্ষতিগ্রস্তদের সর্বাত্নক সহযোগীতা করেন তিনি।

এসময় এমপি শিবলী সাদিকের সুস্থতার জন্য সকল মসজিদ মন্দিরে দোয়া ও প্রার্থনা করা হয়। যাতে তিনি সুস্থতা লাভ করে আবার জনগনের মাঝে ফিরে আসতে পারেন।

মেরুদণ্ড সার্জারি করার জন্য এমপি শিবলী সাদিক ৩ নভেম্বর সিংগাপুর গমন করেন।সেখানে চিকিৎসকের নিবিড় পর্যাবেক্ষণের পর গত ১৫ নভেম্বর তাঁর সফল সার্জারি সম্পন্ন হয়।সার্জারি শেষে ২০ নভেম্বর তিনি দেশে ফেরত আসেন এবং গতকাল ২৪ নভেম্বর বিকাল ৩:০০টায় ট্রেনে বিরামপুর নিজ এলাকায় পৌছেন।

এসময় দলীয় নেতাকর্মী সহ সর্বস্তরের জনগনের ছিল উপচে পড়া ভিড়।সেই সময় এক আবেগঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়। অনেকে আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন। একজন নেতা জনগন কে কতটুকু ভালবাসা দিলে জনগন এমন ভালবাসা দেয় তা সচক্ষে না দেখলে বিশ্বাস করা যায় না।

উল্লেখ, আপনার মত একজন নেতার নেতৃত্বের প্রভাবে একটি পরিবার, প্রতিষ্ঠান, দেশ – এমনকি বিশ্বও বদলে যেতে পারে। পৃথিবীর ইতিহাস আসলে নেতৃত্বের ইতিহাস। আপনার যোগ্য নেতৃত্বের হাত ধরে একটি নতুন সভ্যতার জন্ম হতে পারে, শুরু হতে পারে নতুন যুগ।