শ্রীনগরে ব্যাটারি চালিত অটোরিক্সা ছিনতাই চক্রের ২ সদস্য আটক

শ্রীনগর (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি: শ্রীনগরে ব্যাটারি চালিত অটোরিক্সা ছিনতাই চক্রের ২ সদস্য আটক হয়েছে। শরিবার সকালের দিকে ঢাকা-মাওয়া এক্সপ্রেসওয়ের হাঁসাড়া বাস স্ট্যান্ডের সামনে থেকে সিরাজদিখানের শাকিব হোসেন দার (২৩) ও ঢাকার দক্ষিন কেরানীগঞ্জের রসুলপুর এলাকার ভাড়াটিয়া মো. সাইফুল ইসলাম (১৮) নামে ২ ছিনতাইকারীকে আটক করে ভূক্তভোগী আবু তাহের নামে এক ব্যক্তি। অটো ছিনতাইকারী ধরার খবর পেয়ে ভূক্তভোগী অটোর মালিকরা ঘটনাস্থলে ছুটে আসে। পরে ওই ২ ছিনতাইকারীকে এক্সপ্রেসওয়ের ষোলঘর কেয়টখালীর বটতলা এনে আটকিয়ে রাখে তারা। শ্রীনগর থানা পুলিশ খবর পেয়ে অটো ছিনতাইকারী ২ সদস্যকে থানায় নিয়ে আসে। চক্রটি গত ২ সপ্তাহে উপজেলার বিভিন্ন স্থান থেকে প্রায় ১০/১২টি ইজিবাইক কৌশলে ছিনতাই করেছে বলে ভূক্তভোগীরা অভিযোগ করেন।

এ সময় কেয়টখালীর মিথুন বলেন, গত বুধবার এরাই আমার অটোতে যাত্রী সেজে উঠে সিরাজদিখান যাওয়ার কথা বলে। পরে সিরাজদিখানের ইছাপুরা এলাকার নিরব স্থানে আমাকে অজ্ঞান করে অটো নিয়ে যায়। কামার খোলার যুবরাজ বলেন, গত ১২ দিন আগে বেলা ১১ টার দিকে আব্দুল্লাহপুর যাওয়ার কথা বলে তারা অটোতে উঠে। আব্দুল্লাপুর এলাকায় গেলে হাত-পা বেঁধে আমার ইজিবাইকটি নিয়ে গেছে। কল্লিগাঁও এলাকার আক্কাস বলেন, গত ৬ দিন আগে ঝিলমিল নামক স্থানের কাশবনের পাশে গিয়ে হাত-পা বেঁধে আমার অটোটি নিয়ে যায় তারা। এছাড়াও অটো ছিনতাইয়ের শিকার খৈয়াগাঁও এলাকার আরিফ, ষোলঘরের নূর ইসলাম অভিযোগ করে বলেন, এরাই গত রোববার ও বুধবার আমাদের ইজিবাইকে যাত্রী সেজে উঠে। দিনে দুপুরে নিরাপদ স্থানে গিয়ে হাত-পা বেঁধে ও বেøড দিয়ে হাত কেটে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে অটো নিয়ে গেছে। আবু তাহের বলেন, গত পরশু আমার ইজিবাইকে এরাই যাত্রী সেজে উঠে। পরে নিরব স্থানে গিয়ে আমাকে জিম্মি করে অটো নিয়ে যায়। আজ হাঁসাড়া বাস স্ট্যান্ডে হঠাৎ তাদের দেখে চিনে ফেলি। এ সময় লক্ষ্য করি এক অটো চালককে তারা বলছে আব্দুল্লাহপুর যাবে কিনা। চালক যেতে রাজি দুই ছিনতাইকারী অটোতে উঠার সময় চিৎকার দিয়ে তাদের ধরে ফেলি। খবর পেয়ে ভূক্তভোগী অন্যান্য অটো চালকরা ঘটনাস্থলে আসেন। পরে শ্রীনগর থানার ওসি সাহেব ঘটনাস্থলে আসেন।

এ ব্যাপারে শ্রীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. হেদায়াতুল ইসলাম ভূঞা বলেন, এ ঘটনায় ছিনতাইকারীদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে। অটোগুলো উদ্ধারের জন্য পুলিশ মাঠে কাজ শুরু করছে।