মিলন নামে এক যুবকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে।

সাভার প্রতিনিধি: সাভার পৌর এলাকায় বর্গা নেয়া একটি শুকনো পুকুরে চাষাবাদকে কেন্দ্র করে মিলন নামে এক যুবকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। 


প্রাথমিক তদন্তে এমন দ্বন্দেই মিলনকে হত্যার পর তার বন্ধু ইমন পালিয়ে গেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। নিহত মিলনের বাবা ফজলুল হক জানান, গত কয়েকদিন বছর ধরে বাড়ির পাশে পানি শুকিয়ে যাওয়া একটি পুকুর বর্গা নিয়ে চাষাবাদ করে আসছিলো ছেলে মিলন ও তার বন্ধু ইমন। কিছুদিন ধরে তারা সেখানে বাঁশ দিয়ে বেড়া তৈরি করছিলো। আজ সকালে ১১ টার দিকে মিলন বাসা থেকে বের হয়ে ওই স্থানে যায়। পরে সেই পুকুরে মিলনের রক্তাক্ত মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা। খবর পেয়ে পুলিশ দুপুরে মরদেহ উদ্ধার করে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে। এঘটনার পর থেকে মিলনের বন্ধু ইমনকে এলাকায় পাওয়া যাচ্ছে না
বৃহস্প্রতিবার দুপুরে পৌর এলাকার ১ নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ জামসিং এলাকায় নিজ বাড়ির পাশে একটি শুকানো পুকুর থেকে রক্তাক্ত মিলনের মরদেহ উদ্ধার করে সাভার মডেল থানা পুলিশ। 


নিহত পেশায় টাইলস মিস্ত্রি মো. মিলন সাভার পৌর সভার ১ নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ জামসিং মহল্লার ফজলুল হকের ছেলে। অভিযুক্ত মিলনের বন্ধু মো. ইমন একই এলাকার বাসিন্দা। 
সাভার মডেল থানার পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) সাইফুল ইসলাম বলেন, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ওই যুবকের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

নিহতের শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। মূলত দুই বন্ধুর বর্গা নেয়া জমিতে কে আগে চাষাবাদ করবে এমন ঘটনার জেরেই ইমন তার বন্ধুকে মিলনকে হত্যা করেছে বলে প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে। এঘটনায় অভিযুক্ত ইমনকে আটকের চেষ্টা চলছে। পাশাপাশি থানায় একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতিও চলছে।