এস কে রাজু -কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধিঃ কিশোরগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনের মাত্র চারদিন আগে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ও নৌকা প্রতীককে সমর্থন দিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মো. শফিকুল গণি ঢালী লিমন।

মঙ্গলবার (১২ জানুয়ারি) দুপুরে সংবাদ সম্মেলন করে আনুষ্ঠানিকভাবে তিনি নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন। জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে এই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সংবাদ সম্মেলনে শফিকুল গণি ঢালী লিমন লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন। এতে তিনি বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ও জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আস্থা, শ্রদ্ধা ও সম্মান প্রদর্শন করে দলীয় শৃঙ্খলা রক্ষার নিমিত্তে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম এমপি’র অনুরোধে আমি আমার প্রার্থিতা প্রত্যাহার করলাম এবং আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ও নৌকা প্রতীককে সমর্থন করলাম।

সংবাদ সম্মেলনে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট কামরুল আহসান শাহজাহান, সহ-সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মো. জিল্লুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট এম এ আফজল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শাহ আজিজুল হক, দপ্তর সম্পাদক আহমেদ উল্লাহ প্রমুখ ছাড়াও বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

আগামী ১৬ জানুয়ারি অনুষ্ঠেয় কিশোরগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে মোট ৫জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তাদের মধ্যে চারজন দলীয় প্রার্থী এবং একমাত্র স্বতন্ত্র প্রার্থী ছিলেন মো. শফিকুল গণি ঢালী লিমন।

বর্তমানে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় থাকা দলীয় চার প্রার্থী হলেন, আওয়ামী লীগ প্রার্থী বর্তমান মেয়র মো. পারভেজ মিয়া (নৌকা), বিএনপি প্রার্থী মো. ইসরাইল মিঞা (ধানের শীষ), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ প্রার্থী মো. নজরুল ইসলাম (হাতপাখা) এবং ন্যাশনাল পিপলস পার্টি (এনপিপি) প্রার্থী মো. স্বপন মিয়া (আম)।

অন্যদিকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে শফিকুল গণি ঢালী লিমন মোবাইল ফোন প্রতীক পেয়েছিলেন।